Poison in the name of coffee | Imtiaz Mahmud

গোলাপ

একটা গাছে পাঁচটা গোলাপ ফুটেছে
তাদের একজন হাসপাতালে রোগী দেখতে যায়,
একজন জেলখানায় নেতাকে ছাড়িয়ে আনতে, একজন
বাসর ঘরে যায়, আর একজন মরদেহের সাথে,
পাঁচ নম্বর গোলাপটা ডালে ঝুলে আছে,
এখনো বিক্রি হয়নি।

ROSES

Five roses bloomed together
One visits a patient in hospital
One goes to free the leader from jail
Another one goes to the bridal Chamber
And the other one’s with a corpse
The fifth one is still waiting
On the branch- yet to be sold!



ঐশ্বর্য

আমার গরীব মা বড়লোক মামার বাসায় বেড়াতে
যান। মা’র সাথে আমরা অর্থাৎ তার ছেলেমেয়েরা।
আমরা নাজুক হয়ে উজ্জ্বল সোফায়
আমরা সতর্কতার সাথে কালার টিভি
আমরা ভয়ে ভয়ে শরবতের গ্লাস
যেন সুন্দর মন খারাপ না করে! ফেরার সময় মামা
আমাদের ১০০ করে টাকা দেন। আমরা খুশি হই।
আর বাবা না আসায় তার জন্য আমার খুব আফসোস
হয়। আমার বোকা বাবা ঐশ্বর্যের ছোঁয়া পেলো না।

AFFLUENCE

My poor maa-
Taking us, I mean all her children, with her
To visit her brother’s home,
our so rich uncle!
We squeezed on the shiny sofa
We are cautious with color tv,
to hold glass of sherbet
So the beauty doesn’t mind. Uncle gives
us 100 taka each when we return.
We become happy.
And I regret why baba didn’t come.
My stupid baba-
Missed the affluence!


বন্ধু

আমি মরে গেলে বন্ধুরা মনে হয় কেউ কেউ আসবে। আমার লাশ
দেখতে। বলবে, ওর যে এমন হবে সে তো আগেই জানতাম।
কতবার বারণ করা হলো। কে শোনে কার কথা! কেউ বলবে, গত
সপ্তাহে একবার ফোন করলো। কথা বলতে পারলাম না। বুধবার
বাসায় আসতে বললাম। এলো না। একজন বলবে, বছরখানেক
আগে দশ হাজার টাকা ধার করলো, তারপর কোনো দেখা নেই।
আরে আমি কি কখনো টাকার তাগাদা দিয়েছি!
—তাদের কাছে আমার অনেক ঋণ।
আমি মরে গেলে আমার লাশটা বন্ধুদের খেতে দিও।

FRIENDS

When I die, some friends will come to see my corpse. They’ll say, we knew from the beginning he’s gonna have this fate! We said no many times! But he paid no attention!

«He called me last week,» someone will say, «but I couldn’t talk; told him to come see me on Wednesday. But he didn’t show up!»

«He borrowed 10k from me a few years back,» another will say, «and then he kept no contact. Areh, did I ever ask him to pay me back?»

-I owe them a lot

When I die, let my friends feast on my corpse!


অমরতা

মরতে আমার খালি দেরি হয়ে যায়!
আকাশের কিমাকার মেঘদল দেখে
আমি একা মরে মরে বেঁচে থাকি রোজ
আর বেঁচে যেতে গিয়ে পুনরায় ভাবি,
পরদিন পেতে পারি মরণের খোঁজ।
পৃথিবীতে আমি মরে যেতে পারতাম
কোন সাপের কামড়ে, হঠাৎ বিমারে,
পথে হেঁটে যেতে যেতে বাসের তলায়!
আমার কাফন তবু চুরি হয়ে যায়
আমার গায়ের জামা ছোট হয়ে যায়।
পৃথিবীতে আমি মরে যেতে পারতাম
হাসতে হাসতে একা মাথা ঘুরে পড়ে,
ধারালো ছুরিতে আর কফির চুমুকে!
কফির বদলে লোকে বিষ খেতে দেয়
আমি এক চুমুকে তা খেয়ে উঠে ভাবি,
এবার আমারে আর যাবে না বাঁচানো
আকাশের মেঘদল উড়ে গেলে দেখি
বিষের গেলাসে আবে হায়াত মেশানো!

IMMORTALITY

I always miss the chance of dying!

I see odd clouds in the sky
I live like dead, alone
and then I keep wondering while surviving
Who knows I may find death the next day.

On this earth- I could die
from a snake-bite, of a sudden disease,
Under the wheels of a bus, while crossing the road!

Even my shroud has been stolen
My clothes have been shrunk

On this earth- I could die
From dizziness while laughing alone,
By a sharp knife or even with a sip of coffee!

People serve poison in the name of coffee
I drink it in a sip and think,
this time I’ll die for sure

But then I see clouds flying up in the sky
And taste immortality mixed in my poison-glass


বই

খোদা আমাকে মানুষ বানালো।
আমি হতে চেয়েছিলাম বই।
বাংলা বই। লাল মলাট।
মোমের আলোয় বালকেরা
আমাকে গলা ছেড়ে পাঠ করতো।
বাংলা বই। মোমের আলোয়।
খোদা আমাকে মানুষ বানালো।
কেউ পড়তে পারে না!

BOOK

God made me human.
I wanted to be a book.
Bangla book. Red cover.
Boys would read out me loud
In the light of candle.
Bangla book. In the light of candle.
God made me human.
No one can read me!


IMTIAZ MAHMUD is a contemporary Bangladeshi poet. He was born in 1980 and published eight collections of poetry and a collection of Maxims. He won Krittibash Sahitya award for his collection of poems “Pentacle” from Kolkata, India.

SHAFINUR SHAFIN is a poet, writer, translator and academic. She is also the poetry editor of Prachya Review, an international literary website. Though her native language is Bangla, but she also likes to write in English as well. Her first poetry collection, Nisangam, has been published from Bangladesh in 2016 and translation book “gondomphul”, Maxims by Imtiaz Mahmud, published in 2019.


Courtesy of the translator

Deja una respuesta

Introduce tus datos o haz clic en un icono para iniciar sesión:

Logo de WordPress.com

Estás comentando usando tu cuenta de WordPress.com. Salir /  Cambiar )

Imagen de Twitter

Estás comentando usando tu cuenta de Twitter. Salir /  Cambiar )

Foto de Facebook

Estás comentando usando tu cuenta de Facebook. Salir /  Cambiar )

Conectando a %s

Web construida con WordPress.com.

Subir ↑

A %d blogueros les gusta esto: